হার্ট ক্যান্সারের নাম শুনেছেন কখনো?

আমরা ব্রেইন ক্যান্সার, লিভার ক্যান্সার, ফুসফুস ক্যান্সার, কোলন ক্যান্সার আরও আনেক রকমের ক্যান্সারের কথা জানি। মেয়েদের স্তন ক্যান্সার কিংবা ছেলেদের প্রস্ট্রেট ক্যান্সারের প্রকোপও ইদানীং বাড়ছে। হার্ট অ্যাটাক তো অহরহ হচ্ছে, কিন্তু কখনো কি হার্ট ক্যান্সারের কথা শুনেছেন? কী মনে হয়? হার্ট ক্যান্সার হয়? না, আসলেই নেই।
যুক্তরাষ্ট্রের হাসপাতালগুলোতে হিসাব করে দেখা গেছে সারা বছরে একটাও হার্ট ক্যান্সার নেই। কিন্তু কেন হার্ট ক্যান্সার হয় না? তার আগে আসুন জেনে নেই ক্যান্সার আসলে কী? আমাদের দেহের বিভিন্ন অঙ্গের কোষগুলো বার বার বিভক্ত হয়ে বাড়তে থাকে। একারণেই সেগুলো আকারে বাড়ে। কিন্তু এই কোষগুলোর বিভাজন একসময় থেমে যায়। কোষের ভেতরেই সংকেত দেয়া থাকে যে কতদিন পর্যন্ত এই কোষটি বিভাজিত হবে এবং কখন বন্ধ হবে। যদি এই সংকেত নষ্ট হয় তখন কোষগুলোর বিভাজন চলতেই থাকে এবং টিউমার হয়। টিউমারের কোষ বিভাজন যদি চলতেই থাকে তখন আমরা বলি ওই অঙ্গের ক্যান্সার হয়েছে।
কিন্তু পুরো দেহের মধ্যে হার্টই হচ্ছে একমাত্র অঙ্গ, যার কোষগুলো কখনো বিভক্ত হয় না। এ কারণেই সাধারণত হার্ট ক্যান্সার হয় না। শুধু মায়ের গর্ভে থাকার সময় শিশুর হার্টসেলগুলো বিভক্ত হয়ে বাড়তে থাকে। এ সময় খুব কম সংখ্যক শিশুর হার্টে ক্যান্সার হতে পারে। কিন্তু শিশুর জন্মের ঠিক আগেই তার হার্টের কোষ বিভাজন বন্ধ হয়ে যায়। ফলে মায়ের গর্ভে যদি শিশুর টিউমারও হয়ে থাকে তবুও আর সেটা বাড়তে পারে না।
এখন প্রশ্ন করতে পারেন, তাহলে শিশু বড় হওয়ার সাথে সাথে হার্টের আকার বড় হয় কীভাবে? এটি বাড়ে মূলত হার্টের পেশীর প্রসারণের মাধ্যমে, কোষ বিভাজনের মাধ্যমে নয়। তাই হার্ট ক্যান্সারের কোনো ভয় থাকে না।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *